ArabicBengaliEnglishHindi

সৌন্দর্য বাড়াতে এই জিনিসগুলো ভুলেও মুখে লাগাবেন না!


প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ৪, ২০২২, ৬:১৫ অপরাহ্ন / ১০৫
সৌন্দর্য বাড়াতে এই জিনিসগুলো ভুলেও মুখে লাগাবেন না!

লাইফস্টাইল ডেস্ক ->>
ত্বকের সৌন্দর্য বাড়াতে অনেকেই নানা কিছু ব্যবহার করেন। আবার জেনে বা জেনে এমন অনেক কিছুই ত্বকে ব্যবহার করে ফেলেন যা মারাত্মক ক্ষতির কারণও হয়ে যায়। বিভিন্ন উৎসবে নানা রকম প্রসাধনী ব্যবহার করেন মুখে। অনেকে আবার নানা রকম ফেসপ্যাকও ব্যবহার করেন।
কিন্তু জানেন কি, এসব হতে পারে আপনার ত্বকের অনেক বড় সমস্যার জন্য দায়ী? কেবল রুক্ষ্ম ও শুষ্ক হয়ে যাওয়াই নয়, অকালে বলিরেখা পড়া সহ ত্বকের হরেক রকম সমস্যা ও অসুখের জন্য দায়ী হতে পারে এসব পণ্য। চলুন এবার চিনে নেই এমন কিছু জিনিস যা ভুল করেও কখনো মুখে লাগাবেন না-
১. চুলে রঙ করতে গিয়ে খেয়াল রাখুন রঙ যেন মুখে না লাগে। আর অনেকেই চুলের কালার ম্যাচ করার জন্য ভ্রূ কালার করান যা খুবই ক্ষতিকর।
২. ডিওডোরেনট আন্ডারআর্মে ঘাম প্রতিরোধ করে মানেই এই নয় যে এটা মুখেও সেটা ঘাম হতে দেবে না। মেকআপ সেট রাখার জন্য বা কিছুক্ষণ কম ঘামার জন্য অনেকই ডিওডোরেনট মুখে স্প্রে করেন। এই কাজটি ভুলেও করবেন না।
৩. হেয়ার স্প্রে যদি ব্যবহার করতেই হয়, তাহলে মুখ ঢেকে করুন। এতে এমন উপাদান থাকে যা ত্বক রুক্ষ্ম করে তোলা, অকালে বলিরেখা, র‍্যাশ ও এলারজির জন্য দায়ী।
৪. ঘি জাতীয় কোন দ্রব্য কখনো মুখে লাগতে দেবেন না। এই পণ্যগুলো মুখের জন্য অত্যন্ত ভারীও লোমকূপ বন্ধ করে দিতে যথেষ্ট।
৫. চুলে শ্যাম্পু করার সময় সাবধানে করুন যেন মুখে না লাগে। এটি মুখের ত্বকের জন্য খুবই খারাপ।
৬. হেয়ার সিরামের নামের সঙ্গে “সিরাম” শব্দটি আছে বলেই ধরে নেবেন না যে সেটি ত্বকের জন্য ভালো। চুলের জন্য যেসব সিরাম যা সম্পূর্ণই মাথার চুলে ব্যবহারের জন্য তৈরি আর সেটাকে সেই কাজেই ব্যবহার করুন।
৭. অনেকেই বডি লোশন মুখে মেখে থাকেন। কিন্তু বডি লোশন মুখের কোমল ত্বকের জন্য অনেক বেশি ভারী যা উপকার করার বদলে কেবল ক্ষতিই করে। এতে নানান রকম সুগন্ধী উপাদান থাকে যা মুখের জন্য ভালো নয়। মুখের ত্বকে চাই আরো হালকা জিনিস।
৮. মেয়নিজ জিনিসটা খেতে যেমন মজাদার, তেমনই চুলের জন্য খুব ভালো। কিন্তু মুখের জন্য ভালো নয় মোটেও। অনেকে ফেস মাস্কে মেয়নিজ ব্যবহারের কথা বললেও এটা আসলে মোটেও ভালো নয়।
৯. ফুট ক্রিম বা পায়ে মাখার ক্রিম বা কোন ধরণের ভ্যাসেলিন জাতীয় পণ্য ভুল করেও কখনো মুখে স্পর্শ করাবেন না।
১০. ভিনেগার অনেক ঘরোয়া চিকিৎসায় কাজে লাগলেও এটি মুখ থেকে দূরে রাখুন। ভিনেগার ব্যবহারের পর হাত ভালো করে ধুয়ে তবেই মুখে হাত দিন।
১১. শিশুরা খেলার সময় নেইল পলিশ দিয়েও আঁকিবুঁকি করে মুখে। অনেককেই নেইল পলিশ দিয়ে কপালে টিপ আঁকতে দেখা যায়। এই ভুলটি করা থেকে বিরত থাকুন। মুখে থেকে দূরে রাখুন এই ক্ষতিকর রাসায়নিক।