ArabicBengaliEnglishHindi

শরীয়তপুরে বৃদ্ধা মহিলার জমি জোর করে দখল করে গাছ কর্তন


প্রকাশের সময় : এপ্রিল ২৪, ২০২২, ৮:৩৭ অপরাহ্ন / ২৬
শরীয়তপুরে বৃদ্ধা মহিলার জমি জোর করে দখল করে গাছ কর্তন

আমির হোসেন (শরীয়তপুর প্রতিনিধি) ->>
শরীয়তপুর জেলার সদর উপজেলার পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের কাগদী গ্রামের মৃত আশ্রাফ আলী ছৈয়ালের স্ত্রী মনোয়ারা বেগমের জমি জোর করে দখল করার অভিযোগ উঠেছে একই এলাকার প্রভাবশালী মমিনউদ্দীন বেপারী গংদের বিরুদ্ধে।

২২/০৪/২২ সকালের দিকে সরজমিনে গেলে দেখা যায় মনোয়ারা বেগমের ভাঙ্গা ঘরটি পরে রয়েছে, এই ঘরটি প্রভাবশালী মমিনউদ্দীনরা ঘরটি ভেঙ্গে দিয়েছে।যেদিন ঘরটি ভাঙ্গা হয়েছিল সেদিন অভিযুক্তরা মনোয়ারা বেগমকে বেদম মারধর করেছিলো।

অভিযোগকারী মনোয়ারা বেগম বলেন,ভুয়া একটা দলিল দিয়ে আমাদের জমি দখল করে খাচ্ছে। শুধু মাত্র আমি দলিল দিয়েছিলাম,আর কারো সম্পত্তি বিক্রি করি নাই,দলিলটি ভুয়া কারন দলিলে আমার আর আমার মেয়ের বয়স দেখানো হয়েছে ৩৮ বছর,অথচ ওই সময় আমার মেয়ে এবং ছেলেরা নাবালক ছিলেন,এই জমির জন্য ওরা আমাকে অনেক মরধোর করেছে, ওদের ভয়ে এলাকায় কেহ কথা বলতে সাহস পায়না।

এব্যাপারে মমিনউদ্দীন বেপারীর সাথে বারবার যোগাযোগ করে ও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

নালিশী জমির কাগজ পত্র পর্যালোচনা করে দেখা যায় যে, কাগদী মৌজার এস এ ১৩৯ খতিয়ানে ৩২১নং দাগের ৫৪ শতাংস জমির মালিক ছিলেন বাদীনির স্বামী আশ্রাফ আলী ছৈয়াল, তিনি স্ত্রী, তিন পুত্র ও দুই কন্যা রেখে মারা যান।অভিযুক্ত মমিনউদ্দীন অভিযোগকারী মনোয়ারা বেগম ও তার এক কন্যার নিকট হতে দুই নাবালক পুত্র ও এক নাবালিকা কন্যার ওয়ারিশ জমি সহ মোট-৪২ শতাংশ জমির রেজিষ্ট্রি করে নেন।অভিযুক্ত মমিনউদ্দীন উক্ত জমি বি আর এস পর্চা ভুক্ত করেন।

পরবর্তীতে অভিযোগকারী মনোয়ারা বেগম ও তার নাবালক সন্তান বর্তমানে তারা সাবালক তাদের ওয়ারিশ ভুক্ত জমি দাবি করেন এই মর্মে যে, তার মা তাদের জমি বিক্রি করার অধিকার রাখেন না,কারন তখন তারা নাবালক ছিলেন।