ArabicBengaliEnglishHindi

রাজশাহীতে সাইনবোর্ড লিখতে হবে বাংলায়


প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ৭, ২০২২, ১০:১৮ অপরাহ্ন / ১৩২
রাজশাহীতে সাইনবোর্ড লিখতে হবে বাংলায়

সৈয়দ আ: হালিম মোহনপুর প্রতিনিধি রাজশাহী ->>

রাজশাহী শহরের সবখানেই এখন চোখে পড়ে ইংরেজিতে লেখা সাইনবোর্ড। বিদেশী প্রতিষ্ঠান তো বটেই, দেশীয় স্থানীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর ক্ষেত্রেও সাইনবোর্ড লেখা হচ্ছে ইংরেজিতে। অথচ সাত বছর আগেই বাংলায় সাইনবোর্ড লেখার নির্দেশনা দিয়েছে হাইকোর্ট। সে নির্দেশনা এতদিনেও বাস্তবায়ন হয়নি। তবে এবার ভাষার মাসে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক)।

সাইনবোর্ডে ইংরেজির পাশাপাশি বাংলাও লিখতে ব্যবসায়ীদের চিঠি দিচ্ছে রাসিক। সোমবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল থেকে দোকানে দোকানে চিঠি পৌঁছে দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে। রোববার রাসিকের রাজস্ব বিভাগ এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। রাসিকের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আবু সালেহ মো. নূর-ঈ-সাইদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘সাইনবোর্ডে বাংলা লেখার জন্য উচ্চ আদালতের একটা নির্দেশনা আছে। নানাকারণে এটি বাস্তবায়ন হয়নি। তবে এবার আমরা রুটিন ওয়ার্ক হিসেবে এই কাজটিতে হাত দিয়েছি। ব্যবসায়ীদের সাত দিন সময় দেওয়া হবে সাইনবোর্ডে বাংলা লেখার জন্য। সাত দিন পর এ বিষয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে।

বিদেশী অনেক প্রতিষ্ঠান সাইনবোর্ডে বাংলা লিখতে চায় না। প্রতিষ্ঠানগুলোর স্থানীয় কর্মকর্তারা বলে থাকেন, এটি তাদের ব্র্যান্ডের নাম। বিশ্বের নানা দেশেই এভাবে সাইনবোর্ড আছে। সে কারণে একই সাইনবোর্ড তারা ইংরেজিতেই লিখে থাকেন।

এসব প্রতিষ্ঠান কী করবে জানতে চাইলে আবু সালেহ মো. নূর-ঈ-সাইদ বলেন, ‘স্থানীয় কিংবা বিদেশী প্রতিষ্ঠানগুলো সাইনবোর্ডে ইংরেজি রাখতে পারবে। তবে ইংরেজির পাশাপাশি বাংলাও লিখতে হবে। নইলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি জানান, রাজশাহীতে কী পরিমাণ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান কিংবা সাইনবোর্ড আছে সে জরিপ করা হয়নি। তাই সংখ্যাটাও তারা বলতে পারবেন না। সে কারণে রাজস্ব বিভাগের কর্মীরা সোমবার থেকে একই ধরনের চিঠি নিয়ে রাস্তায় বের হবেন। রাস্তার পাশে ইংরেজিতে লেখা যে সমস্ত সাইনবোর্ড চোখে পড়বে সে প্রতিষ্ঠানে গিয়েই শুধু ওই চিঠিতে প্রতিষ্ঠানের নাম লিখে সংশ্লিষ্টদের ধরিয়ে দেওয়া হবে।

তিনি আরও জানান, চিঠি দেওয়ার পাশাপাশি এ ব্যাপারে একটি গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে। এতে সাত দিনের মধ্যে সাইনবোর্ড সংশোধনের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেওয়া হবে। যারা নির্দেশনা মানবেন তা তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, শহরের সবখানেই ইংরেজিতে লেখা সাইনবোর্ডের আধিক্য। স্থানীয় ছোটখাট প্রতিষ্ঠান কিংবা রেস্তোরাঁগুলোও এখন সাইনবোর্ড লিখছে ইংরেজিতে। শহরের সাহেববাজার গণকপাড়া মোড় থেকে শহীদ এএইচএম কামরুজ্জামান চত্বর পর্যন্ত বিভিন্ন ধরনের প্রায় ৩১১টি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান পাওয়া গেছে। এরমধ্যে শুধু বাংলায় লেখা সাইনবোর্ড দেখা গেছে ৮১টি। বাংল ও ইংরেজির দুটোই আছে এমন সাইনবোর্ড দেখা গেছে ৯৭টি। আর শুধু ইংরেজি লেখা সাইনবোর্ড দেখা গেছে ১৩৩টি।

ভাষার মাসের প্রথম দিন থেকে ইংরেজি সাইনবোর্ডের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে শুরু করেছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন। এরপর রাজশাহী সিটি করপোরেশনও এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে। সুশাসনের জন্য নাগরিকের (সুজন) জেলার সভাপতি আহমেদ সফিউদ্দিন বলছেন, এটা একটা প্রশংসনীয় উদ্যোগ। তিনি বলেন, সাইনবোর্ডে ইংরেজি থাকতে পারে। কারণ, অনেক বিদেশী আসেন। কিন্তু বাংলাকে বাদ দিয়ে সাইনবোর্ড নয়। সাইনবোর্ডে বাংলাকে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ প্রশংসনীয়।