ArabicBengaliEnglishHindi

মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা সিরাজ দল থেকে বহিষ্কার


প্রকাশের সময় : নভেম্বর ১৩, ২০২২, ৯:১৬ অপরাহ্ন / ৩৩
মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা সিরাজ দল থেকে বহিষ্কার

মোঃ সবুজ খান, মির্জাপুর, টাংগাইল ->>

টাংগাইলের মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। মির্জাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মীর এনায়েত হোসেন মন্টুকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করার অপরাধে দল থেকে সিরাজুল ইসলাম সিরাজকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেন উপজেলা আওয়ামীলীগ। গত মঙ্গলবার (৮ নভেম্বর) মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সভাপতি মীর শরিফ মাহমুদ ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ তাহরিম হোসেন (সীমান্ত) স্বাক্ষরিত একটি লিখিত নোটিশের মাধ্যমে উক্ত সিদ্ধান্তগ্রহণ করা হয় বলে জানা যায়। তিনি মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ দল এর যুগ্ম সম্পাদক পদে ছিলেন।

গত শুক্রবার (৪ নভেম্বর) বিকেলে উপজেলায় পুলিশ পাহাড়ায় রেখে উপজেলা আওয়ামীলীগ এর কার্যকরী সভায় এই অপরাধ মূলক কাজ করার জন্য তাকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে বহিষ্কার করা হয়েছে বলে জানান উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সভাপতি মীর শরিক মাহমুদ।

উক্ত সভায় মীর শরীফ মাহমুদের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন টাঙ্গাইল-৭ মির্জাপুর আসনের সংসদ সদস্য খান আহমেদ শুভ, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মীর এনায়েত হোসেন মন্টু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি মোজাহিদুল ইসলাম মনির, যুগ্ম সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, সৈয়দ ওয়াহিদ ইকবাল, মাজাহারুল ইসলাম শিপলু, সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুর রহমান আকন্দ, শামীম আল মামুন, দপ্তর সম্পাদক জহিরুল ইসলাম জহিরসহ ৭১ সদস্যবিশিষ্ট উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির ৫৫ জন সদস্য।

উল্লেখ্য গত ২৮ অক্টোবর বিকেলবেলায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স টাংগাইল জেলা আওয়ামীলীগ এর সম্মেলন উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামীলীগ এর একটি প্রস্তুতি সভার আয়োজন করা হয়। সে সময় কমপ্লেক্স এর বাহিরে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মীর এনায়েত হোসেন মন্টুকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন উপজেলা আওয়ামীলীগ এর যুগ্ম সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম (সিরাজ)। জেলা পরিষদ নির্বাচনে তার বিপক্ষে কাজ করার অভিযোগ এ উপজেলা চেয়ারম্যান কে লাঞ্ছিত করেন সিরাজ। পরে উপজেলা চেয়ারম্যান এর অনুসারী সহ সকল পর্যায়ের নেতৃবৃন্দের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এ বিষয়ে উপস্থিত অধিকাংশ সদস্যই সিরাজকে স্থায়ী বহিষ্কারের দাবি জানান।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার (৮ নভেম্বর) সিরাজুল ইসলামকে বহিষ্কার কার্যকর শুরু হয় বলে জানা যায়।

মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সভাপতি মীর শরিক মাহমুদ বলেন, আওয়ামীলীগ একটি বৃহৎ সংগঠন। এখানে কোনো অপরাধের সাথে জড়িতদের ছাড় নয়। তাই সিরাজ যে কাজটি করেছে তা সাংগঠনিক বহির্ভূত। এজন্য আমরা উপজেলা আওয়ামীলীগ সিদ্ধান্ত নিয়েছি এবং তাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত জানিয়ে কেন্দ্রীয় কমিটি ও জেলা আওয়ামীলীগ বরাবর চিঠি পাঠিয়ে সুপারি করেছি।