ArabicBengaliEnglishHindi

পরিবার সহ গা ঢাকা দিয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী


প্রকাশের সময় : জানুয়ারী ৩১, ২০২২, ৬:৫৩ অপরাহ্ন / ১৭
পরিবার সহ গা ঢাকা দিয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ->>
তিনি দেশে বেশ জনপ্রিয়। প্রধানমন্ত্রী হয়েও সাধারণ মানুষের সঙ্গে মিশে যেতে পারেন তিনি। তাঁর সহজ সরল জীবনে অভিভূত হয়ে বারবার সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়েছেন নেটিজ়েনরা। তিনি কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো । জানা গিয়েছে নিজের পরিবার সমেত গোপন জায়গায় গা ঢাকা দিয়েছেন কানাডিয়ান প্রধানমন্ত্রী। শনিবার, সংবাদমাধ্যম থেকে পাওয়া রিপোর্ট অনুযায়ী করোনা টিকা নিয়ে সরকারি নির্দেশিকার কারণে যে প্রতিবাদ চলছে সেই কারণে রাজধানীর বাসভবন ছেড়ে অন্য কোথাও চলে যেতে হয়েছে ট্রুডোকে।

আন্তঃসীমান্ত ট্রাক চালকদের জন্য ট্রুডো সরকারের তরফে করোনা টিকা নিয়ে দেওয়া নির্দেশিকার বিরুদ্ধে গড়ে ওঠা আন্দোলন বড় আকার ধারণ করেছে। আন্দোলনকারীরা এই আন্দোলনকে ‘ফ্রিডম কনভয়’ নাম দিয়েছেন।

কানাডিয়ান ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশনের প্রতিবেদন অনুযায়ী জানা গিয়েছে, শনিবার রাজধানী অটোয়াতে হাজার হাজার ট্রাক চালক ও সাধারণ মানুষ সরকারের টিকাকরণ নীতি ও অন্যান্য কোভিড বিধির কারণে পথে নেমেছিল।

আন্দোলনকারীদের মধ্য অনেক শিশু, বয়স্ক নাগরিক এবং প্রতিবন্ধীরাও ছিল। কেউ কানাডার প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করেন, কেউ আবার ট্রুডোকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করছিলেন। কানাডার শীর্ষ সেনা জেনারেল ওয়েইন আয়ার এবং কানাডার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী অনিতা আনন্দের তীব্র নিন্দা বিক্ষোভকারী ওয়ার মেমোরিয়ালের ওপর নাচ করতে দেখা গিয়েছে। তীব্র ঠান্ডা আবহাওয়ার আগাম সতর্কবার্তা সত্ত্বেও প্রচুর সংখ্যায় আন্দোলনকারী রাস্তায় নেমেছিল এবং সংসদের কাছাকাছি চলে যাওয়া পুলিশকে হাই অ্যালার্টে রাখা হয়েছে।

আন্দোলকারীদের আচরণের তীব্র নিন্দা করেছেন সেনা জেনারেল ওয়েন। টুইট করে তিনি লিখেছেন, “অজানা সৈনিকের সমাধিতে প্রতিবাদকারীদের নাচ এবং জাতীয় যুদ্ধ স্মৃতিসৌধকে অপমান করতে দেখে আমি অসুস্থ হয়ে পড়ছি। কানাডিয়ানদের একের পর এক প্রজন্ম আমাদের অধিকার ও স্বাধীনতার জন্য লড়াই করে প্রাণ দিয়েছেন। যাঁরা এই কাজ করেছেন তাদের লজ্জায় মাথা নত করা উচিৎ।

প্রতিরক্ষামন্ত্রী অনিতা আনন্দও এই ধরনের বিক্ষোভের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, “আমরা আজ যে আচরণ দেখছি তা নিন্দনীয়। অজানা সৈনিকের সমাধি এবং জাতীয় যুদ্ধ স্মৃতিসৌধ আমাদের দেশের জন্য পবিত্র স্থান। যাঁরা কানাডার জন্য লড়াই করেছেন এবং মারা গিয়েছেন তাদের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে আমি সমস্ত কানাডিয়ানদের তাঁদের প্রতি আন্তরিকতার সঙ্গে আচরণ করার জন্য অনুরোধ করছি।