ArabicBengaliEnglishHindi

নীলফামারীতে ঘাস কাটাকে কেন্দ্র করে বৃদ্ধাকে পিটিয়ে আহত


প্রকাশের সময় : মে ১৬, ২০২২, ৫:১১ অপরাহ্ন / ৫২
নীলফামারীতে ঘাস কাটাকে কেন্দ্র করে বৃদ্ধাকে পিটিয়ে আহত

নীলফামারী প্রতিনিধি ->>
নীলফামারীতে ঘাস কাটাকে কেন্দ্র করে অসহায় বৃদ্ধাকে মারধর ও বুকে সজোরে বুকে লাথি মেরে পিটিয়ে জখম করা হয়েছে। বৃদ্ধাকে মারধরের বিষয়ে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

নীলফামারী সদর উপজেলার টুপামারী ইউনিয়নের সুখধন গ্রামে ঘাস কাটাকে কেন্দ্র করে অসহায় বৃদ্ধাকে মারধর ও বুকের সজোরে লাথি মেরে জখম করেছে
এমন অভিযোগ উঠেছে উক্ত এলাকায়।

বখাটে যুবক খাজার বিরুদ্ধে। আহত বৃদ্ধার পুত্র বাদী হয়ে বখাটে খাজা (৩০)কে ১ নম্বর আসামী করে নীলফামারী বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের করেন, যার ( মামলা নম্বর ১০২/২২)। আহত বৃদ্ধকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে এবং নীলফামারী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ১৬ই এপ্রিল নীলফামারীর সদর উপজেলার টুপামারী ইউনিয়নে সুখধন গ্রামে ঘাস কাটাকে কেন্দ্র করে বৃদ্ধাকে মারধর ও বুকের সজোরে লাথি মেরে জখম করেছে একই গ্রামের খাজা (৩০)। এ ঘটনায় বৃদ্ধার ছেলে রেজাউল ইসলাম নীলফামারী বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের করেন, যার (মামলা নম্বর ১০২/২২)।

সরেজমিনে গেলে স্থানীয়দের সাথে কথা বললে জানা যায়, গরুর ঘাস কাটাকে কেন্দ্র করে বিগত ১৬ই এপ্রিল একই গ্রামের আঃ বাকি মিস্ত্রির ছেলে খাজা ও বাকির সাথে বিরোধ সৃষ্টি হয়। বৃদ্ধাকে ঘাস কাটাকে কেন্দ্র করে মারধর ও বুকের সজোরে লাথি মেরে জখম করে।

মামলার বাদী রেজাউল জানায়, আমার মা বয়স্ক মানুষ গড়ুর ঘাস কাটতে বাড়ীর
পাসে নদীর ধারে গেলে, খাজা উস্কানীমুলোক আচরণ করে ও ঘাস কাটতে বাধা প্রদানসহ আমার মায়ের পরিহিত কাপর টেনে হিচরে ছিরে মাটিতে ফেলে এলোপাতাড়ি মা-র ডাং সহ বুকে সজোরে লাথি মারে।

এ বিষয়ে খাজার সাথে সাংবাদিকদের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি ঘটনার কথা শিকার করে বলেন, তাদের বাড়ীর লোকজন আমাকে ধরতে আসলে আমি আত্ন রক্ষার দায়ে মহিলাকে লাথি মেরে দৌড়ে বাড়ির দিকে আসি।

এ বিষয়ে টুপামারী ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য রুহুল হক বলেন, খাজা ছেলেটা দুষ্কৃতকারী এর বিরুদ্ধে ইতি পুর্বে অনেক অভিযোগ আছে। টুপামারী ইউনিয়ন প্যানেল চেয়ারম্যান মাহমাদুল হক মাসুম বলেন ঘটনাটি আমি অবগত। এ ঘটনায় প্রকৃত দোষিদের আইনের আওতায় আনা দরকার বলে আমি মনে করি।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগীর পরিবার ও মামলার বাদী রেজাউল ইসলাম মামলার সুস্থ তদন্ত সাপেক্ষে অপরাধীর শাস্তি দাবি করেন।