ArabicBengaliEnglishHindi

নওগাঁয় জোরপূর্বক গাছ কেটে লিচু আত্মসাৎ ও গৃহবধূকে মারপিটের অভিযোগ


প্রকাশের সময় : মে ৩১, ২০২২, ৭:২৩ অপরাহ্ন / ২৭
নওগাঁয় জোরপূর্বক গাছ কেটে লিচু আত্মসাৎ ও গৃহবধূকে মারপিটের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার ->>
নওগাঁয় মামলা চলমান অবস্থায় অবৈধভাবে জোরপূর্বক বাগানের গাছ কেটে ফল আত্মসাৎ ও পরবর্তীতে গাছে আগুন লাগিয়ে পুড়ে ফেলা সহ গৃহবধূককে মারপিটের অভিযোগ উঠেছে একই এলাকার মৃত ফজলু এর ছেলে মোঃ রতন (৪৫) গণের বিরুদ্ধে।
ঘটনাটি ঘটেছে, নওগাঁ সদর উপজেলার তিলকপুর ইউনিয়নের শ্রীধরপুরে দক্ষিণ পাড়া এলাকায়।

উক্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওই এলাকারা স্থানীয় বাসিন্দা মৃত বোনা মন্ডলের ছেলে ভুক্তভোগী গোলাম মোস্তফা (৬৬) বাদী হয়ে গত ২১/০৫/২২ ইং তারিখে নওগাঁ সদর মডেল থানায় ১। মোঃ রতন (৪৫) পিতা-মৃত ফজলু, ২। মোঃ মিলন (৩০), ৩। মিজান (৩৫) উভয় পিতা- মৃত আবুল খায়ের, ৪। মোঃ ওয়াজেদ (৩০), ৫। মোঃ রব্বানী (২০) উভয় পিতা মোঃ রাজ্জাক, ৬। মোঃ মহসিন (৫২) পিতা মৃত কেনা মন্ডল, ৭। মোঃ নাজমুল (৪০), ৮। মোঃ ছামিনা আক্তার (৪৫) স্বামী-মোঃ মহসিন, ৯।মোছাঃ রুবী আক্তার (৪০) স্বামী-মোঃ মিলন, ১০। মোঃ ফজলু (৬০) পিতা- আলিম, ১১। মোছাঃ বিথী আকতার (৩০) স্বামী রবিউল ইসলাম, ১২। মোছাঃ শামু (৩৫) স্বামী মোঃ মিন্টু কে আসামী করে উক্ত ১২ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন, মামলাতে ১৫ লাখ টাকার ক্ষতি দেখানো হয়। যার মামলা নং- ৩৫/২৬৯।

জানা যায়, মামলা চলমান অবস্থায় গত ২০ শে জুন-২০১৯ তারিখে ধানী/বাগান ১৮ শং কাতে ০৬ শং দক্ষিনে যার খতিয়ান নাম্বার সি.এস-৫, সাবেক দাগ নং- ৭৭৮, হাল দাগ ৮৯৬ এবং ভিটা/বাগান ১৮ শং সম্পূর্ণ যার খতিয়ান নং- আর.এস-৫২, সাবেক দাগ- ৭৮৩,হাল দাগ- ৮৬৭ জমীতে আদালত কর্তৃক অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা প্রদান করা হয়।

 

 

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, তিলকপুর এলাকার শ্রীধরপুর দক্ষিন পাড়া জামে মসজীদ এলাকার গোলাম মোস্তফার লিচু বাগানের ২৯ টি লিচু গাছসহ বেশ কিছু লেবু ও মেহগনির গাছ কর্তন করা হয়েছে এবং আগুনে পোড়া রয়েছে।
এবিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক ব্যক্তি বলেন, এই জমিটি গোলাম মোস্তফার। গত ২১ মে ২০২২ তারিখে সকালে মোঃ রতন অবৈধ জনতায় জোরপূর্বক লিচু কেটে নিয়ে যায় ও গাছে আগুন লাগিয়ে দেয়।

মামলা সূত্রে জানা যায়, জমি-জমার বিরোধে পূর্ব শত্রুতার জেরে ২১/০৫/২০২২ তারিখে সকাল ১১ ঘটিকার সময় নওগাঁ সদর মডেল থানাধীন শ্রীধরপুর দক্ষিন পাড়া জামে মসজিদ এর সামনে মোঃ গোলাম মোস্তফা এর লিচুর বাগানে মোঃ রতন গণ অবৈধ জনতায় দলবদ্ধ হয়ে হাতে লাঠি সোঠা, লোহার রড,ধারালো হাসুয়া ইত্যাদি নিয়ে অনধিকার প্রবেশ করে গোলাম মোস্তফার স্ত্রী মোছাঃ শেলি বেগম (৩৬) কে হত্যার উদ্দদেশ্য এলোপাথারী ভাবে মারপিট করে তার সরিরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর জখম করে। ঐ সময় গোলাম মোস্তফার মা মোছাঃ জামেনা বেগম এগিয়ে এলে তাকেও মারপিট করে জখম করা হয়। মোঃ রতন গণ ২টি বাগানের মোট ২৯ (উনত্রিশ) টি ফলসহ লিচু গাছ, ২২ (বাইশ) টি ফলসহ লেবু গাছ ও ১৪ (চৌদ্দ) টি মেহগনির গাছ কাটে, যার সর্বমোট আনুমানিক মূল্য ১৫,০০,০০০ (পনের লাখ) টাকার ক্ষতি সাধন করে। সংবাদ পেয়ে পরবর্তীতে গোলাম মোস্তফা দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে গাছ কাটার বিষয়ে জানতে চাইলে তাকে মোঃ রতন গণ ক্ষিপ্ত হয়ে প্রাণে মেরে ফেলার জন্য ধারালো হাসুয়া দ্বারা ধাওয়া করায় প্রাণের ভয়ে চিৎকার করলে মোঃ সাহাদৎ হোসেন (৪৫) পিতা-মৃত ফজলু,২। মোঃ তোফাজ্জল (৫৫) পিতা-মৃত আফজাল হোসেন, ৩। মোঃ নুরুজ্জামান (৩৫) পিতা-মোঃ দেলোয়ার এগিয়ে আসলে রতন গণ ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।
পরবর্তীতে গোলাম মোস্তফার আহত স্ত্রী ও মাকে তিলকপুর বাজারে প্রাথমিক চিকিৎসা করানো হয়।

মোঃ গোলাম মোস্তফা বলেন, মোঃ রতন, মোঃ মহসিন ও মোঃ মিলন এর সাথে জমি-জমা বিষয়ে দীর্ঘদিন ধরে আমার বিরোধ চলছে। এর পরিপেক্ষিতে আমি, জেলা প্রশাসক অফিস,এসপি অফিস, নওগাঁ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর আবেদন করেছিলাম। জমিগুলোর উপর ২০/০৬/২০১৯ তারিখে আদালতের অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা প্রদান করে। তারপরেও তারা অবৈধভাবে আমার পরিবারকে মারপিট করে ফলসহ গাছ কেটে নিয়ে গেছে। আমি অসহায় এক বৃদ্ধ মানুষ। আমি এর সঠিক বিচার চাই।

এ বিষয়ে নওগাঁ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জুয়েল বলেন, গাছ কর্তন বিষয়ে একটি মামলা রুজু করা হয়েছে। আইন অনুযায়ী দ্রুত সঠিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।