ArabicBengaliEnglishHindi

ধুলিয়ানী সম্মিলনী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন


প্রকাশের সময় : মে ৬, ২০২২, ১:২৭ অপরাহ্ন / ৫০
ধুলিয়ানী সম্মিলনী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন

আবু জাফর বিশ্বাস,(চৌগাছা প্রতিনিধি)->>

যশোরের চৌগাছা থানাধীন ধূলিয়ানী সম্মিলনী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৫মে) সকাল ১০টায় একটি রেলি শেষে জাতীয় সঙ্গীতের সাথে পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন আলহাজ্ব মোঃ মহসিন আলী, প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক ধূলিয়ানী সম্মিলনী মাধ্যমিক বিদ্যালয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন, মাননীয় উপাচার্য, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন যশোর জেলার পুলিশ সুপার জনাব প্রলয় কুমার জোয়ারদার, বিপিএম(বার), পিপিএম।

আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি পুলিশ সুপার জনাব প্রলয় কুমার জোয়ারদার তাঁর বক্তব্যে বিদ্যালয়ের সকল কোমলমতি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, “তোমরা বছরের শুরুতেই যে নতুন বই পাও এটা কিন্তু মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অবদান, তিনি দেশকে ডিজিটালে রুপান্তরিত করেছেন। আমাদের সময় কিন্তু বছরের শুরুতেই নতুন বই পাওয়া যেতনা। তোমাদের সকলকে উপযুক্ত শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে উপযুক্ত মানুষ হতে হবে, তোমাদের মানবিক মূল্যবোধে বলিয়ান হয়ে প্রকৃত মানুষ হতে হবে। এই মাটি ও মানুষের প্রতি গভীর টান থাকতে হবে এবং প্রযুক্তির সঠিক ব্যবহার করতে হবে কোন ভাবেই এটার অপব্যবহার করা যাবে না”।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশের অন্যতম সমস্যার মধ্যে একটি হচ্ছে সর্বনাশা মাদক। আর এই যশোর জেলাটি সীমান্তবর্তী হওয়ায় এখানে মাদকের বিচরণ রয়েছে। আমি যশোর জেলায় যোগদানের শুরুতেই মাদকের বিরুদ্ধে একেবারে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছিলাম এবং সেই লক্ষ্যে বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছি। এ ব্যাপারে জড়িত কোন গডফাদারদেরও ছাড় দেয়া হবেনা। তিনি বলেন, অপসংস্কৃতির অপচর্চা কিন্তু এখনো রয়ে গেছে, এ ব্যাপারে সকলকে আরো বেশি সচেতন হতে হবে। তিনি দ্ব্যর্থহীন কন্ঠে বলেন, মাদকসেবী, মাদকবিক্রেতা এবং মাদকের সাথে যাদের সখ্যতা আছে তাদের স্থান এই যশোরে হবেনা। তিনি আরো বলেন, এই জনগণের ট্যাক্সের টাকায় আমার পোষাক এবং বেতন হয়। সুতরাং তাদের শান্তিতে ও নিরাপদে বসবাসের উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করে দেয়া আমার দায়িত্ব। আমার উপর অর্পিত সরকারি দায়িত্ব আমি অত্যন্ত সততার সাথে, নিষ্ঠার সাথে, সাহসিকতার সাথে এবং পেশাদারিত্বের সাথে পালন করবো। এক্ষেত্রে কোন প্রকার অপশক্তির কাছে মাথা নত করবো না। আমি আপনাদের পুলিশ সুপার, আমার অফিসের দরজা সব সময় আপনাদের জন্য খোলা থাকবে।

বিশেষ অতিথি হিসাবে আরো উপস্থিত ছিলেন, জনাব এ কে এম গোলাম আযম, জেলা শিক্ষা অফিসার, যশোর। জনাব মোহাম্মদ মানোয়ার হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) যশোর। ড. বিশ্বাস শাহিন আহম্মদ, বিদ্যালয় পরিদর্শক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, যশোর। ড. মোঃ মোস্তানিছুর রহমান, চেয়ারম্যান উপজেলা পরিষদ, চৌগাছা। মোঃ নাজিম উদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন যশোর পশ্চিম আঞ্চলিক শাখা। ডা. মোঃ আনোয়ার হোসেন, অত্র বিদ্যালয়ের অন্যতম পৃষ্ঠপোষক। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, অন্যান্য বিশেষ অতিথিবৃন্দ, বিদ্যালয়ের শিক্ষকমন্ডলী এবং বিদ্যালয়ের বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীবৃন্দ।