ArabicBengaliEnglishHindi

জাজিরায় লে. কর্নেল (অব.) রাসেল’র বিরুদ্ধে চাঁদা না পেয়ে ব্যবসায়ীর ওপর সন্ত্রাসী হামলার অভিযোগ


প্রকাশের সময় : মে ২৬, ২০২২, ৬:৫৬ অপরাহ্ন / ২০
জাজিরায় লে. কর্নেল (অব.) রাসেল’র বিরুদ্ধে চাঁদা না পেয়ে ব্যবসায়ীর ওপর সন্ত্রাসী হামলার অভিযোগ

শরীয়তপুর প্রতিনিধি ->>
শরীয়তপুরের জাজিরা কাজির হাটের এক ব্যবসায়ির কাছে চাদার টাকা না পেয়ে মারধর করানোর অভিযোগ উঠেছে কর্নেল (অব.) রাসেলের বিরুদ্ধে। এঘটনায় জাজিরা থানায় একটি অভিযোগ করা হয়েছে ৷

অভিযোগসূত্রে জানা গেছে,
জাজিরার কাজির হাটের আরিফ মেশিনারিজের মালিক মো. ইউসূফ শনি’র সাথে কর্নেল রাসেলের ব্যবসায়িক বিষয়াদি নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছিল ৷ কর্নেল রাসেল বিভিন্ন সময় চাঁদা দাবি করে প্রাণ নাশের হুমকি দেয় এবং কাজির হাটে ব্যবসা করতে দিবে না বলে বিভিন্ন প্রকার ভয় ভীতি দেখিয়ে ১১ লাখ ৫০ হাজার টাকা নেয়৷ পরে আবারও ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করলে ইউসূফ শনি চাঁদা দিতে অস্বীকার করে ৷

 

তারই ধারাবাহিকতায় কর্নেল (অব.) রাসেলের নির্দেশে রাম দা, সেন দা,চাইনিজ কুড়াল,রড, হাতুড়ি ও লাঠিসোটা নিয়ে-রিপন মুন্সী,স্বপন মুন্সী,মোবারক মোল্যা,সুমন মোল্যা,শিমুল মোল্যা,ফয়সাল কাজি,রাসেল কাজী,রিয়াজ কাজী,স্বপন পাঠান, সুজন মোল্যা,পাবেল মোল্যা,জাহাঙ্গীর মোল্যা,নাসির মোল্যা,রোকন কাজী,দিপু ফকির,সেলিম মুন্সী,বাদশা মুন্সী,মোতালেব মাদবর,জাহাঙ্গীর মাদবর,মাসুদ মাদবর,সুজন মাদবর,মালেক চৌকিদার,শাহ আলম ফকির,শামিম মোল্যা সহ আর ১৫-১৬ জন ইউসুফ শনিকে মারধর করে তার কাছে থাকা ৮লক্ষ টাকা ও ১ভরি ২আনা ওজনের স্বর্নের চেইন ছিনিয়ে নিয়ে যায় ৷

প্রত্যক্ষদর্শী ও অভিযোগকারী সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার কাদিরপুর ইউপি চেয়ারম্যান বি এম জাহাঙ্গির বেপারি ও কাদির মোল্যা বলেন,কাজির হাটের সুলতান সিকদারের রড সিমেন্টের দোকানের সামনে গেলে ২০/৩০ জনের একটি দল রড, হাতুড়ি রেন্স ও লাঠি সোটা নিয়ে ইউসুফ শনিকে হটাৎ গতিরোধ করে আঘাত করতে থাকে আর বলে, “কর্নেল রাসেলকে কি বলছোছ, তার কথা শুনছ না কেন৷” এই বলে আঘাত করতে থাকে। ছাড়াতে গেলে উপর চড়াও হয় ৷ এরপর অনেক মারধর করে তার সাথে থাকা টাকার ব্যাগ ছিনিয়ে নিয়ে তাকে ফেলে রাখার পর ইউসুফ শনিকে উদ্ধার করে জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়৷ কর্তব্যরত ডাক্তার শারিরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেলে প্রেরন করেন ৷

আহত ইউসুফ শনির সাথে মুঠোফোনে আলাপ কালে তিনি বলেন, কর্নেল (অব.) রাসেলের সাথে আমার ব্যবসায়িক বিষয়াদি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। রাসেল বিভিন্ন সময় চাদা দাবি করে আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দেয় এবং কাজির হাটে ব্যবসা করতে দিবেনা বলে বিভিন্ন প্রকার ভয় ভীতি দেখাইয়া ১১ লাখ ৫০ হাজার টাকা নেয়৷ এরপর আবারও সে ১০ লাখ টাকা চাদা দাবি করলে ইউসূফ শনি চাঁদা দিতে অস্বীকার জানায় ৷

 

তারই ধারাবাহিকতায় কর্নেল রাসেলের নির্দেশে রিপন মুন্সী,স্বপন মুন্সী,মোবারক মোল্যা, সুমন মোল্যা, শিমুল মোল্যা, ফয়সাল কাজি, রাসেল কাজী, রিয়াজ কাজী,স্বপন পাঠান,সুজন মোল্যা,পাবেল মোল্যা, জাহাঙ্গীর মোল্যা,নাসির মোল্যা, রোকন কাজী,দিপু ফকির, সেলিম মুন্সী,বাদশা মুন্সী,মোতালেব মাদবর,জাহাঙ্গীর মাদবর, মাসুদ মাদবর,সুজন মাদবর, মালেক চৌকিদার,শাহ আলম ফকির,শামিম মোল্যা সহ আর ১৫/১৬ জন আমাকে চাপাটি,রাম দা,সেন দা, চাইনিজ কুড়াল,রড, হাতুড়ি ও লাঠিসোটা দিয়ে মারধর করে আমার কাছে থাকা ৮লক্ষ টাকা ও ১ভরি২আনা ওজনের স্বর্নের চেইন ছিনিয়ে নিয়ে যায় ৷ এখন আমি এই বিষয়ে মামলা যাতে না করি তার জন্য আমাকে অনেক ভয়ভীতি দেখাইতাছে ৷

তিনি আরও বলেন, আজ ২৫ মে বুধবার অভিযোগ বার্তা সহ কয়েকটি অনলাইন পোর্টালে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রচার করা হয়েছে ৷ যা সম্পূর্ণ আমাকে হেও পতিপন্ন করার উদ্দেশ্যে ৷ আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। আমার নামে অপপ্রচারের বিরুদ্ধে আমি আইনী সহায়তা গ্রহণ করবো।

এ ব্যাপারে সৈয়দ নজরুল ইসলাম রাসেল মোড়ল (কর্নেল রাসেল) বলেন, আমি শুনেছি কাজির হাটের কিছু পোলাপানের সাথে হাতাহাতি হয়েছে ৷ এই ব্যাপারে আমি কিছুই জানি না ৷

তবে এব্যাপারে জাজিরা থানার ওসি মিন্টু বৈদ্যর কাছে জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যায়৷