ArabicBengaliEnglishHindi

কাগজে কলমে সকল মানুষই সমান বললেও বাস্তবে নয়


প্রকাশের সময় : জুন ২৪, ২০২২, ১২:১৬ অপরাহ্ন / ৪৬
কাগজে কলমে সকল মানুষই সমান বললেও বাস্তবে নয়

হনলুলু নগরীর ওয়াইকিকি বিচ।হোটেল থেকে মাত্র দুই মিনিটের পায়ে হাঁটা পথ।ফজর নামাজ শেষ করে প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়েছি।বিভিন্ন বয়সী প্রাতঃভ্রমণপিপাসু ও স্বাস্থ্য সচেতন মানুষের চলাচল।বিশেষভাবে যেটি চোখে পড়লো তা হলো রাস্তার পাশে ছিন্নমূল মানুষের রাতযাপন।ষাটোর্ধ একজন পুরুষ গায়ে কম্বল জড়ানো ময়লা একটা কাপড়ের ওপর বসে বিড়বিড় করছে। বোঝা গেল রাতে ঘুম হয়নি।

জিন্সপ্যান্ট পরিহিত চল্লিশোর্ধ একজনকে দেখলাম বালির ওপর একটা কাপড় বিছিয়ে ঘুমাচ্ছে। মাথার পাশে একটি বই। কৌতুহল বাড়লো- এগিয়ে দেখলাম মেরুন মলাটে সিলভার হরফে লেখা Holy Bible (পবিত্র বাইবেল)।ছবিতে দেখা যাচ্ছে একজন বেশ পূর্ণ প্রস্তুতি নিয়ে ঘুমাচ্ছে।মাথার পাশে একটি লাঠি। একটি ব্যাগ। নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র। ছোট একটা ছাতা দিয়ে চোখ মাথা ঢেকে রাখা। লক্ষ্য করলাম পূবের সূর্যের আলো থেকে নিজের চোখটা আড়াল করার চেষ্টা- হতে পারে একটু বেশি বেলা পর্যন্ত ঘুমানোর ইচ্ছে।ভ্রাম্যমান জীবনযাপনে হয়তো সে অভ্যস্ত।

অন্ন-বস্ত্র-বাসস্থান।মানুষের মৌলিক চাহিদা।সৃষ্টির ঊষালগ্ন থেকে মানুষের জন্য সংগ্রাম করে আসছে — জয়ও করেছে।অবস্থা ও অবস্থানভেদে পৃথিবীতে মানুষের শ্রেণীকরণ হয়েছে। কাগজে কলমে ‘সকল মানুষই সমান’ বললেও বাস্তবে তা কখনোই হয়নি। কেবল ব্যক্তিবিশেষ নয় বিশ্বসংস্থাসহ পৃথিবীর সব দেশ সব সংগঠন যতকিছুর জন্য সম্মিলিতভাবে মেধা বিনিয়োগ করছে গবেষণা করছে সংগ্রাম করছে ক্রমবিন্যাস করলে এই তিনটিই এক, দুই এবং তিন নম্বরে থাকে।এতকিছুর পরেও কেন যেন নিরঙ্কুশভাবে সেই অভাব মেটানো সম্ভব হয়নি।

বাংলাদেশে আমরা রাজধানী ঢাকার কমলাপুর রেলস্টেশন, মতিঝিল, কারওয়ানবাজার, বুড়িগঙ্গা ব্রীজের নিচে রাস্তায় বসবাসকারী ছিন্নমূল মানুষের দেখা পেয়ে থাকি।কিন্তু বিশ্বের এক নম্বর অর্থবিত্তশালী প্রভাবশালী দেশ আমেরিকায়ও যখন দেখি রাস্তার পাশে খোলা আকাশের নীচে মানুষ রাতযাপন করছে তখন বিষয়টি আমরা কোন দৃষ্টিকোন থেকে দেখব? তাহলে কি এর অ্যাবসলিউট কোনো সমাধান নেই! থাকলেও তা আর কতদূর!

হাবিবুর রহমান, ডিআইজি, ঢাকা রেঞ্জ